বৃহস্পতিবার ২৯শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ১৬ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

পরমাণু অস্ত্র ব্যবহারের আলোচনা

ডেস্ক রিপোর্ট   |   বৃহস্পতিবার, ০৩ নভেম্বর ২০২২   |   প্রিন্ট   |   249 বার পঠিত

পরমাণু অস্ত্র ব্যবহারের আলোচনা

ইউক্রেন যুদ্ধে পারমাণবিক অস্ত্র ব্যবহার করা হতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করছে যুক্তরাষ্ট্র। দেশটির দাবি, সম্প্রতি রাশিয়ার উচ্চপদস্থ সামরিক কর্মকর্তারা ইউক্রেনে কৌশলগত পরমাণু অস্ত্রের ব্যবহার নিয়ে আলোচনা করেছেন। তবে এ আলোচনার সময় দেশটির প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন উপস্থিত ছিলেন না।

গতকাল বুধবার মার্কিন গণমাধ্যম দ্য নিউইয়র্ক টাইমসের খবরে বলা হয়েছে, ইউক্রেনে কৌশলগত পরমাণু অস্ত্র কখন ও কীভাবে ব্যবহার করা হবে সেটি নিয়ে আলোচনা করেছেন রুশ সামরিক কর্মকর্তারা। এতে যুক্তরাষ্ট্র ও তার মিত্ররা গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছে বলে জানিয়েছেন আমেরিকান কর্মকর্তারা। তাঁদের মতে, যুদ্ধে ব্যর্থতার কারণে হতাশ হয়ে রুশ সামরিক কর্মকর্তারা এ আলোচনা সামনে আনেন। এটা বাইডেন প্রশাসনকে বেশ উদ্বেগের মধ্যে ফেলেছিল।

তবে পরমাণু অস্ত্র স্থানান্তর করেছে অথবা এটি ব্যবহারে কার্যকর কোনো পদক্ষেপ নিচ্ছে ক্রেমলিন এমন কোনো প্রমাণ পাননি আমেরিকান কর্মকর্তারা।

যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তা পরিষদের কর্মকর্তা জন কিরবি জানান, ইউক্রেনে পারমাণবিক অস্ত্রের ব্যবহার সম্পর্কিত রাশিয়ার মন্তব্য বেশ উদ্বেগজনক। রুশ হুমকিকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে কাজ করছে যুক্তরাষ্ট্র। তবে তাদের হাতে পরমাণু অস্ত্র ব্যবহার করবে রাশিয়া- এমন কোনো তথ্য নেই।

মার্কিন প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের ধারণা, রাশিয়ার কাছে ২ হাজার কৌশলগত পারমাণবিক অস্ত্রের মজুত রয়েছে। এসব অস্ত্র যুদ্ধ ক্ষেত্রে ব্যবহার করার জন্য তৈরি করা হয়েছে।

সামরিক বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন, ৭৫ বছরের বেশি সময় পরে যুদ্ধে পারমাণবিক অস্ত্রের ব্যবহার মৌলিকভাবে যুদ্ধের আকার পরিবর্তন করবে। ধ্বংস করবে মানবসভ্যতা। ছোট একটি পারমাণবিক বোমার বিস্ম্ফোরণ হাজার হাজার মৃত্যুর কারণ হতে পারে। একই সঙ্গে এটি ইউক্রেনের কিছু অংশ বসবাসের অযোগ্য করে তুলতে পারে।

এদিকে ক্রিমিয়া উপকূলের সেভাস্তোপলের কাছে কৃষ্ণসাগরে রুশ নৌবহরে ড্রোন হামলার ঘটনায় ব্রিটেনের রাষ্ট্রদূত দেবোরাহ ব্রোনাটকে তলব করবে ক্রেমলিন। মস্কোর দাবি, এ হামলায় ব্রিটেনের সামরিক বিশেষজ্ঞরা জড়িত। তাঁদের নির্দেশনায় এ হামলা চালায় ইউক্রেন।

গতকাল বুধবার রুশ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র মারিয়া জাখারোভা বলেছেন, ব্রিটেনের নৌবাহিনীর বিশেষজ্ঞদের নেতৃত্বে এবং নির্দেশনা অনুযায়ী ইউক্রেন ড্রোন হামলা চালিয়েছে। তাই ব্রিটিশ রাষ্ট্রদূতকে শিগগিরই রাশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে তলব করা হবে। তবে ব্রিটেন শুরু থেকেই রাশিয়ার আনা এই অভিযোগ অস্বীকার করেছে।

রাশিয়ার ক্রুজ ক্ষেপণাস্ত্র হামলার তৃতীয় দিন পরে গতকালও ইউক্রেনের রাজধানী কিয়েভের অন্তত ১৬ হাজার বাড়ি বিদ্যুৎহীন রয়েছে বলে জানিয়েছেন কিয়েভ অঞ্চলের গভর্নর ওলেক্সি কুলেবা। তিনি বলেন, কিয়েভ আবারও রুশ হামলার কেন্দ্রবিন্দু হয়ে উঠছে। কিয়েভে ৭৫০টি হিটিং সিস্টেম রয়েছে। এসব স্থাপনায় হামলা চালিয়ে বিদ্যুৎ, পানি ও গরম পাওয়া থেকে বাসিন্দাদের বঞ্চিত করে সীমাহীন দুর্ভোগে ফেলতে চায় রাশিয়া। দেশটিতে পরমাণু হামলা থেকে বাঁচতে ৪২৫টি ভূগর্ভস্থ আশ্রয়কেন্দ্র প্রস্তুত করা হচ্ছে।

রাশিয়াকে অত্যাধুনিক ড্রোন দিচ্ছে ইরান বলে দাবি করেছেন ইউক্রেন। দেশটির দাবি, এবার নতুন করে রাশিয়াকে ২০০টিরও বেশি কমব্যাট ড্রোন দেওয়ার পরিকল্পনা করছে তেহরান। এর মধ্যে আরশ-২ অ্যাটাক ড্রোনও রয়েছে। নভেম্বরের শুরুতে ইরান থেকে রুশ ফেডারেশনে এসব ড্রোন পাঠানো হবে। এর মধ্যে শহিদ-১৩৬, মোহাজের-৬ ও আরশ-২ এর মতো ড্রোনগুলোও রয়েছে।

এদিকে চুক্তি থেকে রাশিয়ার সরে যাওয়ার পরও শস্য রপ্তানির প্রক্রিয়া অব্যাহত রাখতে উদ্যোগ নেওয়ায় তুরস্ককে ধন্যবাদ জানিয়েছে ইউক্রেন। দেশটির প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি বলেন, তুরস্ক ও জাতিসংঘের প্রচেষ্টার ফলে কৃষ্ণসাগর উপকূলের বন্দর থেকে তাঁর দেশের শস্য পরিবহন অব্যাহত রয়েছে। এই সমর্থন দেওয়ার জন্য তারা ধন্যবাদ পাওয়ার দাবিদার। একই সঙ্গে খাদ্যশস্য করিডোরের নির্ভরযোগ্য ও দীর্ঘমেয়াদি নিরাপত্তা প্রয়োজন।

Facebook Comments Box
advertisement

Posted ১২:৩৬ অপরাহ্ণ | বৃহস্পতিবার, ০৩ নভেম্বর ২০২২

nykagoj.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

ক্যালেন্ডার

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯  
সম্পাদক
আফরোজা ইসলাম
কন্ট্রিবিঊটিং এডিটর
মনোয়ারুল ইসলাম
Contact

+1 845-392-8419

E-mail: nykagoj@gmail.com